শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ || ১১ আশ্বিন, ১৪২৭ || ৯ই সফর, ১৪৪২ হিজরি

জমজমের পানিতে ধুয়েমুছে পরিস্কার করা হলো কাবা শরীফ


সৌদি আরবের বাদশাহ সালমানের পক্ষে মক্কা নগরীর গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল ফয়সাল ও প্রধান খতিব শায়খ আবদুর রহমান আস সুদাইসের নেতৃত্বে জমজমের পানি দিয়ে ধোয়ার কাজ শেষ হলো পবিত্র কাবার।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে কাবা ধোয়ার কাজ শুরু করা হয়। মক্কার গভর্নর প্রিন্স খালিদ কাবাঘর ধোয়া ও পরিচ্ছন্নতার কাজে নেতৃত্ব দেন। পূর্ব ঘোষণা ও রীতি অনুযায়ী সকালে কাবা ধোয়ার কথা থাকলেও এবার রীতি ভেঙে এশার নামাজের পর পবিত্র কাবা ধোয়ার কাজ সম্পন্ন হয়।

সৌদি গেজেট জানায়, কাবা ধোয়ার কাজে হারামাইন প্রেসিডেন্সির চেয়ারম্যান ও কাবার প্রধান খতিব শায়খ আবদুর রহমান আস সুদাইস, স্পেশাল ইমারজেন্সি ফোর্সের কমান্ডার ও হজ সিকিউরিটি ফোর্সের কমান্ডার, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরাও অংশ নেন। অন্য সময় বিভিন্ন মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূতরা অংশ নিলেও এবার করোনাভাইরাসের পরিস্থিতির কারণে তাঁদের কাবা ধোয়ার কাজে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

পবিত্র জমজমের পানির সঙ্গে গোলাপ, উন্নতমানের সুগন্ধি উদ ও কস্তুরি মিশ্রিত পানি দিয়ে পবিত্র কাবা ঘরের অভ্যন্তরে ধোয়ামোছার কাজ করা হয়। তাঁরা পবিত্র কাবা ধোয়ার পর বের হয়ে হাজরে আসওয়াদে (কালো পাথর) চুম্বন করেন এবং কাবা তাওয়াফ করেন। তাওয়াফ শেষে মাকামে ইবরাহিমে নামাজ আদায় করেন।

রীতি অনুযায়ী প্রত্যেক মহররম মাসে পবিত্র কাবা ধোয়া হলেও আরাফার দিন (৯ জিলহজ) কাবার গিলাফ বদলানো হয়। কাবা ধোয়াকে সৌদি সরকার বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। এটা একটা উৎসবও বটে।

শেয়ার করুনঃ